mobile_photography5036

sourav jana

I love nature🎄🎄writing 📝drowing and music🎻🎸 📸📷📸📷 Differentiate the idea .. . Pictures will be new...

Loading...
।ঘাস পোকা । নাম জানি না এদের। আমাদের বাগানে ঘাসের জঙ্গলে থাকে। তাই ঘাস পোকা। এরা বর্ষা আসার আগেই চলে আসে। বছরের অন্য সময় খুব কম সংখ্যক দেখা যায়।
।।এক সুন্দর সকাল।। জায়গাটা আমার ভিষন প্রিয়। সারী সারী শ্বাসমূল ওয়ালা গাছ । পাশ দিয়ে নদী চলে গেছে। কত পাখির ডাক। অসাধারণ জায়গা। ছবিটা সকালে তোলা । সূর্যের আলো সবে কুয়াশার সাথে মিসছিল। যানি এখন কুয়াশা হয় না কিন্তু এমনটা দেখা যায়। গাছ গুলো কালচে রং ধরে আছে। আর সূর্যের আলোটা ধীরে ধীরে ছড়িয়ে যাচ্ছে। একটা লোক আছে ছবির মধ্যে। উনি সকালে মাছ ধরতে বেরিয়েছেন। সত্যি অসাধারণ মুহূর্ত ।সুন্দর ছবি।।
।।"সাদাকালো "।। ভাগ্যবান বলে একটা কথা আছে না! দিন টা বোধহয় সত্যি আমার জন্য ভাগ্যবান দিন। রোজকার মত আজও ভোর 4.30 বেরোলাম। গন্তব্য একই জায়গায়। আমার বাড়ি থেকে হাঁটা পথে 30 মিনিট। নদীর ধারে পৌছাতে পৌছাতে 5টা বাজল। তবুও সূর্যের আসার কোনো নাম গন্ধ নেই। আজও বোধার ডুবদিল। আকাশে মেঘ নেই আবার পরিষ্কারও নেই। এমন পরিস্থিতিতে সাদাকালো ছবি ছাড়া অন্য কিছু মাথায় এলো না। ছবির কম্পোজিশান অনেক সময় ধরে লক্ষ করছিলাম। এদিকে আর কোনো ছবি না পেয়ে ওটার জন্যে সঠিক জায়গা খুঁজলাম। কিন্তু তার জন্য রাস্তা থেকে নিচে নদীর দিকে কাদায় নামতে হবে। 2মিনিট একটু ভেবে নেমে পড়লাম। আগে এমন কাজ করতে লজ্জ্যা করতো। সবাই কেমন ভাবে তাকিয়ে থাকতো। এখন আর অতো কিছু মনে হয় না। আর দর্শকরাও অভ্যস্ত হয়ে গেছে আমার কর্মকান্ডে। আমি সত্যিই lucky ছবি নেওয়ার জন্যে বসে সব ঠিকঠাক তখন দেখি পখি গুলো উড়ে যাচ্ছে। 4থেকে 5টা ছবি তুললাম। এটাই সঠিক এল হ সাধারণ একটা ছবি। সুন্দর মুহূর্ত। . . #worldphotography #blackandwhite #mibileclick #hono6x #photographer
"সাধারণ" এই কয়দিনে আমি অনেক ভালো ভালো ছবি তুলেছি। কিন্তু এই ছবিটা অন্য গুলোর থেকে অন্য রকম লাগে আমার কাছে। সবুজ ঘাস আর অসীম নীল আকাশ। আমার প্রিয় ছবি গুলোর মধ্যে এখন এটা একটা। সেদিন বেরোতে একটু দেরি হয়ে গেছিল। কিন্তু সময়টা ঠিকঠাক ছিল। নদীর পাড়ে উঠে সবে দাড়িয়েছি। আমার বন্ধু বলল পিছনে দিক একবার দেখ। jast. অসাধারণ লাগছিল। তার পর আর কি আবার নিচে নামলাম। একটা ঠিকঠাক position নিলাম। আর একটা সাধারণ ছবি। অসাধারণ মুহূর্তে।
।।আবার একই জায়গায় ছবি।। দুপুর তখন 12টা বাজে। আমি কি এক কারনে বাইরে বেরিয়েছিলাম। তখন চোখ গেল আকাশে। অসাধারণ মেঘ । 1minদেরি না করে, রেডি হয়ে বেরোলাম। আমি একটা কারনে গেলাম ওই রৌদ্রে। এই ঘরের pic টা তোলার জন্য। অনেক দিন ধরে চেষ্টা করেও এত সুন্দর background পাইনি। অবশেষে ছবিটা পেলাম। মাছ ধরা খাঁচা টা। এই ছবির balance করেছে। আর background টাও। সত্যি cool day. অসাধারণ মুহূর্ত ।সাধারণ একটা ছবি ।
#Little spaide# সকালে এদিক ওদিক ঘুরছিলাম। তখনই এনার সাথে দেখা। ঘাসের ওপর এদিকে ওদিকে লাফালাফি করছিল। রাতে বৃষ্টি হয়েছে। তাই ভাবলাম যদি কোনো ছবি পাওয়া যায়। তাই macro lens টা নিয়ে বেরোলাম। তার পর এনার সাথে দেখা ।অনেক ক্ষানী, সময় লেগেছিল। সত্যি অসাধারণ সকাল । অসাধারণ দৃশ্য ।
আমার সব থেকে প্রিয় জায়গা ।।। উফফফ অসাধারন সত্যি অসাধারণ শব্দ।। আমার বাড়ি থেকে 30 মিনিট এর হাঁটা পথ। যদিও যখন যাই 4.30 সময় বেরোতে হয়। নয় তো সূর্য উঠে যায় ।জায়গাটা নদিয়া ধারে। কিছুটা জায়গা নিয়ে এই জঙ্গল মত। কত পাখি, আমি তো 3 4 রকমের মাছরাঙা দেখেছি। সবুজ রঙের একরকম এর পাখির ঝাক দেখছি। সকালে সবগুলো একজাগায় বসে থাকে। মাঝে মাঝে কথা থেকে আবার কোকিল ডাকা ডাকি শুরু করে। আরো কত পাখি নাম না জানা। ।আমার সব থেকে প্রিয় জায়গা ।।। উফফফ অসাধারন সত্যি অসাধারণ শব্দ।।
।।এক দুপুরের গল্প।। এই কিট এরনাম আমি জানি না। ঘাসের জমিতে খুজলে এদের পাওয়া যায়। ঘাস পোকা হয়তো এদের নাম। অনেকে কথায় কথায় বলে না, নেই কাজ তো খই ভাজ। সেটাই হয় আমার সাথে। তখন সময় দুপুর 2টো হবে। বেস শুয়ে শুয়ে একটা গল্প পড়ছিলাম হিমুর। হঠাৎ মনে হল যাই 5টা Macro ছবি তুলে আনি। কিন্তু ঘটনা এটাই, ওই দুপুর গরমে, 35°c তাপমাত্রায় এনাকে ছাড়া কাউকে পেলাম না। রৌদ্রে ঘুরে। একা বেচারা বসে ছিল। ঘাসেদের মাঝে। চারিদিকে ছায়া ছায়া, শুধু ওর উপর আলোটা পড়েছে। সত্যি অসাধারণ লাগছিল, তোলা ছবির থেকেও সুন্দর।
এটা একধরণের ঘাস ফুল। নোনা জল হাওয়ায় জায়গায় পাওয়া যায় এদের। সকালে ছবি তুলতে গিয়ে । ফেরার পথে আমি আর ভাই বসে বসে বসন্ত পাখির ডাক শুনছিলাম। ব্যাপারটা অনেকটা অন্য রকম। বসন্তের হাওয়ার গন্ধ ফিরে আসার একটা প্রত্যাস মাত্র। সূর্যটা আমাদের পিছনের দিকে জঙ্গলে ঢাকা পড়ে আছে তার ওপর মেঘ করেছে। আর সামনে জলাভূমি। সেখানে আসা কত পাখিদের ঝাক। তাই দেখে একটু দুঃখ হয়, কবে যে dslr টা নেব। সে যাক গে। আমাদের পাশেই, ছোট্ট ছোট্ট শুকনো গাছের ডালে ফুল টা পেলাম। সুন্দর একটা মুহূর্ত। সাধারণ একটা ছবি ।
আমার দেখা আমাদের গ্রামের কতগুলি সুন্দর জায়গা গুলির মধ্যে এটি একটি। সুন্দর জায়গা গুলোর বিশেষত্য এটাই যে। দেখে 5sec চোখ সরানো যায় না। আর মুখ থেকে o may God বা owwwooo এই শব্দ বেরিয়ে আসে। সে যাক। রোজকার মত আজও সকাল 5টায় বেরিয়ে ছিলাম। ভালো ছবি পাওয়ার কোনো আসাই ছিল না। বিগল 3দিন ধরে একই ছবি, কোন ফের বদল নেই। তাই নদীর ধারে গিয়ে বসে ছিলাম, নৌকার পাশেই রাস্তায় । আসতে আসতে সূর্য উঠলো বাম দিক থেকে। নৌকোর ওপারে গাছের প্রতিবিম্ব জলে পড়েছে। তার পেছনে নদীর ওপারের গ্রাম। সত্যি অসাধারণ। সত্যি অসাধারণ মুহূর্ত ।
।। অজানা insects ।। আমি এর নাম জানি না। তবে রোজ সকালে ঘুরে আসার পর দেখি এদের। বাড়ির সামনে কিছু মৃত গাছ আছে, সেখানে এরা থাকে। সারাদিন চুপ করে বসে থাকে । শীতের ঠিক পরে থেকে এরা এখানে থাকে। এদের নাম ঠিক জানি না।
।।ব্যাঙএর ছাতা।। পরীক্ষা আর কাজের চাপের জন্য বেরোনোর টাইম পাইনি অনেক দিন। তাই আজ ভোরে বেরোলাম। বসন্তের সময়টা এখন ঠিক নেই। তবে এই ভোরেও কোকিলের ডাক কানে আসছে। হয়তো বাগান বাড়িরর জন্য এত পাখির ডাক আসছে। তার পরের ঘটনাটা আর কিছুই নয়। 2 ঘন্টা ধরে খুঁজে খুঁজে 1টা ভালো ছবি পেলাম না। তার উপরে রৌদ্রের তেজ বাড়ছে। কি আর করা যাবে আস্তে আস্তে বাড়ি ফিরে এলাম। কিন্তু আশ্চার্য বিষয় এটা যে, ঠিক উঠনের সামনেই Mushroom এর ঝাক। রৌদ্রটাও ঠিক perfect ভাবে পড়েছে। সত্যি অসাধারণ মুহূর্ত । সাধারণ একটা ছবি ।। #hono6x #hono6xphotography #mobilephoto #worldphoto
সকাল সকাল এনার সাথে দেখা। ভাইয়ের ফোন টা নিয়েছিলাম। photo চেক করার জন্যে, ওর ফোনের photo - র quality খারাপ । কেন তা এখনও খুজে পাইনি। সামনে বাগানে অনেক গুলো ফড়িং পাই। কিন্তু Macro pic মোবাইলে তোলার সময় অনেক সমস্যা। যারা তোলে তারা এটা ভালোই জানে। খুব সাবধানে, যতটা নিস্তবদ্ধে করা সম্ভব, ততটা নিস্তবদ্ধে pic তুলতে হয়। So অনেক গুলো ফড়িংএর মধ্যে চেষ্টা করে, এনার pic প্রথম তুলেছিলাম। প্রচন্ড রৌদ্রের জন্য একটু সমস্যা হচ্ছিল। আলোর বিপরীত দিকে থাকার জন্যে মোবাইল sceen এ কিছু দেখা যাচ্ছিল না, তা ছাড়া আমার ছায়ার নাড়াচাড়ায় ভয় পেয়ে পালাচ্ছিল, but pic টা ভালো পাওয়ায়। খুব ভালো লাগলো। সাধারণ একটা ছবি ।।
এটা একটা সাধারণ ছবি। এখানে বহুবার ঘুরতে গেছি ছবি তোলার জন্য। এমন ছবি ও, এর থেকে আরো সুন্দর ছবি আছে। কিন্তু আজ অনেকদিন পর সকালে ঘুরতে গেলাম। পরীক্ষার চাপের কারনে যাওয়া হয়ে ওঠেনি। আকাশটা মেঘলা ছিল। যখন ভোরে বের হই তগন হালকা কুয়াশা পড়েছে দূরে দূরে। শিশির ও জমছে ঘাসে। ঘাসে হাঁটতে হাঁটতে পা ভিজে যাচ্ছিল। খুব সুন্দর weather ছিল। light টাও perfect. সুন্দর একটা মুহূর্ত। সাধারণ একটা ছবির মাধ্যমে।
।।শহরী প্রতিবিম্ব।। কিছু দিন আগে ছবিটা তোলা। বর্ষার কাল ক্ষনিক মোটেও ভালো ছিল না। যখন তখন বৃষ্টি আসবে এমন মেঘের অবস্থা। । ব্রীজটা নতুন উদ্ববোধন হয়ছে। সেলফি আর ছবি তোলা এমন ছাড়া কেউ বিশেষ দাঁড়াচ্ছিল না। তার উপর গাড়ির সমস্যার জন্য হেটে পার হতে হচ্ছিল সব। পার হওয়ার সময় এটা তোলা। রাস্তায় জল জমে আছে বৃষ্টির আবহাওয়া। কিছুটা সময়ের মুহুর্ত।। সাধারন একটা ছবি।
"" জল ফড়িং "" সকালে বৃষ্টির জন্যে এই কয়দিন আর কোথাও বেরোনো হচ্ছে না। আমি গ্রামে থাকি, so বৃষ্টি মানেই জল কাদা। আমাদের বাড়িটা ঠিক বাগান বাড়ির মত। বাড়ির চারিদিকে বড় বড় গাছ আর জোপঝাড় এর জঙ্গল মত, বসন্তের হাওয়া লাগা মাত্র পাতা ঝরা শুরু হয়ে গেছে ।। এমন আবহাওয়ায় ঘরে বসে থাকা মানেই ঘুম পাবে। তার মানেই দিনটা গেল। তাই কি করি, কি করি ভাবতে ভাবতে মনে পড়লো microlens টা ঠিক ঠাক না রেখে নোংরা হয়ে গেছে। সেটা পরিষ্কার করে একটু ছবি তোলা যাক। ছবির quality দেখা হবে আর boring ভাবটাও কাটবে।। ছবি তুলতে গিয়ে 1stএই ছবিটা পাই। শাক ক্ষেতের মধ্যে। ফড়িংটা একটা গাছে বসে ছিল, সব গাছের পাতায় তখনও বৃষ্টির জলের ফোটা রৌদ্রে চকচক করছে।রৌদ্র মাঝে মাঝে মেঘের মধ্যে থেকে বেরোচ্ছে আবার হারিয়ে যাচ্ছে। মাঝে মাঝে তো, সূর্য ডাকা মেঘের মধ্যে থেকে আলোর কিরণ বেরোচ্ছে। ছবিটা দেখার পর, I don't believe যে এতো ভালো quality আসবে । অসাধারণ একটা দীন। সাধারণ একটা ছবি । সাধারন জীবনের সঙ্গে।।
।।হোমে ফল দান।। ছবি দেখে যাদের একটা কিংবা 2 টো প্রশ্ন ঘোরাঘুরি করছে। তাদের উদ্দেশ্যে বলি এটা সাধারণ একটা ব্যাপার। saster speed 1/400 আর iso 400, করে তোলা। ঘর অন্ধকার থাকার জন্য দেবী মুর্তি টি অন্ধকার হয়েগেছে। হিন্দু সমাজে রিতি অনুযায়ী পূজোর শেষের দিকে হোম যোগ্য হয়। এবং তাথে ফল দান করতে হয়। আমার luck টা এতটাই ভালো যে ঠিক ওই সময়ের মুহূর্তে ছবিটা তুলি। ভালো করে দেখ একটা আস্ত কলা দেখা যাবে হোম আগুনে।। একটা সাধারণ ছবি, কিছুটা মুহূর্তেকে ধরে রাখার জন্যে অনেক দামী। '' 'প্রতিটি ছবিতে আমি ছোট্ট ছোট্ট ঘটনা এই জন্যই দেই, যাথে ছবি গুলোর সাথে জড়িয়ে থাকা ঘটনাটা ফিরে পেতে,। কথায় আছে না, স্মৃতি অনেক দামী' ' @the_bong_wanderer.
।।জল ছবির নীল শহর।। ভোরে উঠেই মনটা খারাপ হয়ে গেল। শীতটা আর কয়েক দিন পর চলে যাবে তাই। বাইরে এসে দেখি হালকা কুয়াশা পড়েছে, অন্ধকার টা আস্তে আস্তে কাটছে। মোবাইলে তাপমাত্রা 11°c। বেরোলাম ছবির কোনো আসা ছাড়াই। আসলে শীত কমে যাওয়ায় প্রাকৃতিক সব সুন্দর দৃশ্য গুলো জড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ছে। প্রায় ঘন্টা দুয়েক হেঁটে 3টে থেকে 4টে ছবি পেয়েছিলাম। ফেরার পথে, ভাবলাম অন্য দিকটায় ঘুরে আসি। অনেক দিন ধরে যাব যাব করে যাওয়া হচ্ছে না। ওখানে কিছু নতুন শস্য গাছের চাষ করেছে। ওখানে যাওয়া পর বুঝলাম, না আসলে কি miss করতাম। প্রায় অনেক ক্ষানি জায়গায় নীল ফুল ভর্তি। নাম না জানা শস্য চাষ হয়েছে । সত্যি অসাধারণ দৃশ্য । ফুল গুলোর ওপর শিশির জমে আছে। শিশির জল রোদে ঝলমল করছে । যেন '' জল ছবির নীল শহর '' ।। সত্যি সুন্দর সকাল । সাধারণ একটা ছবি । @the.photography.blogger #tpbchallenge2019
next page →